দুর্যোধনটি কে? - মোঃ নূরুল আনোয়ার | Buy Durjodhonti Ke? (Major General Manzur Hottakando) - Md. Nurul Anowar online | Rokomari.com, Popular Online Bookstore in Bangladesh

Product Specification

Title দুর্যোধনটি কে?
Author মোঃ নূরুল আনোয়ার
Publisher ঐতিহ্য
Quality হার্ডকভার
ISBN 9789847763712
Edition 1st Published, 2017
Number of Pages 175
Country বাংলাদেশ
Language বাংলা

Product Summary

"দুর্যোধনটি কে?" বইয়ের লেখকের কথা:
মেজর জেনারেল মঞ্জুরের মতো প্রতিভাবান মুক্তিযোদ্ধাকে সেনা প্রধান না করে বহু কারিশমায় পারদর্শী আপাত নিরীহ এরশাদকে সেনা প্রধান করেন রাষ্ট্রপতি জিয়া। সেই জিয়াকেও নিজ সেনা অফিসারদের হাতেই প্রাণ দিতে হয়েছে। জিয়াকে হত্যা করা হয়েছে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে, ২৪ পদাতিক ডিভিশনের কিছু সামরিক অফিসারকে সেই অভিযোগে তড়িঘড়ি করে ফাঁসি দেয়া হয় এবং জিওসি মঞ্জুরকে গ্রেপ্তারের পর সেনানিবাসে নিয়ে কপালে ১টি গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল। এই হত্যাটির পিছনে মূল ব্যক্তিটি কে তা নিয়ে যে ধূম্রজাল সৃষ্টি করা হয়েছিল তা ভেদ করে এই হত্যাটির পিছনে মূল মস্তিষ্কটি কার সেটা জানার চেষ্টা করেছেন সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা লেখক নূরুল আনোয়ার।

সূচি
* মঞ্জুর হত্যাকাণ্ড এবং তিন জেনারেলের কাসুন্দি/ ১১
* মেজর জেনারেল আবুল মঞ্জুরের একটা সংক্ষিপ্ত পরিচিতি / ১৩
* জিয়াউর মানের পারিবারিক পরিচিতি/ ১৬
* জিয়া উৎখাতের প্রচেষ্টাক্রম/ ২২
* চট্টগ্রামে সেনা অফিসার অভ্যুত্থান : জিয়া হত্যা / ২৬
* ঢাকার পরিস্থিতি/ মেজর জেনারেল মঞ্জুরের চট্টগ্রাম সেনানিবাস ত্যাগ, গ্রেফতার ও হত্যা/ ৪০
* কে এই হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ/ ৬৬
* এরশাদের আগমন ও তৎপরতা/ ৭৪
* মঞ্জুর হত্যা মামলার সুযোগ সৃষ্টি এরশাদ নিজেই সংশোধনের অযোগ্য ২টি ভুল করেন/ ৮০
* হত্যাকাণ্ডের ১৪ বছর পর মঞ্জুরের ভাইয়ের এফআইআর এর বঙ্গানুবাদ/ ৮৫
* ‘জেনারেল এরশাদ, আমি কি জানতে পারি, আপনি কোন পরিকল্পনার কথা বলছেন?’/ ৯৫
* জেনারেল এম এ মঞ্জুর হত্যা মামলার চার্জশিটের পূর্ণ বিবরণ/ ৯৭
* আগমন ও তৎপরতা চার্জশিটে, আলামত ও সাক্ষীর তালিকা/ ১০৩
* মঞ্জুর হত্যার কয়েকটি দিক/ ১০৭
* মঞ্জুরকে তড়িঘড়ি ‘হত্যাকারী’ হিসেবে প্রচার মার্কিন সাংবাদিক লরেন্স লিফশুলৎজের প্রতিবেদন/ ১১১
* সাংবাদিক লিফশুলৎজ-এর ধারাবাহিক প্রবন্ধের শেষ পর্বের উদ্ধৃতি/ ১২১
* একাধিক অস্বাভাবিক মৃত্যু : অনেক স্বাভাবিক প্রশ্ন/ ১২৬
* একজন ‘পণ্ডিত’-এর কথা/ ১৩০
* বিচারের নামে ‘প্রহসন’ আর কত দিন?/ ১৩৪
* যে কথা শেষ হয়েও হলো না শেষ/ ১৩৯
* পরিশিষ্ট/ ১৪১

Author Information

জন্ম, জন্মস্থান স্রষ্টা কর্তৃক নির্ধারিত। ১৯৫০ সালের শীতের শুরুতে চট্টগ্রাম রেলস্টেশন সংলগ্ন এক রেলওয়ের বাংলোতে জন্ম, অথচ তার বড় বোনের জন্ম ১৯৪৭ এর আগস্টে আসামের রাজধানী গৌহাটি শহরে। পিতা সিরাজুল মুস্তাফা এবং মাতা তৈয়বা বেগম (উভয়ে জান্নাতবাসী) চট্টগ্রাম জেলার মান্দারী টোলা গ্রামের অধিবাসী । পিতা আসাম বেঙ্গল, নর্থইস্টার্ন এবং পাকিস্তান ইস্টার্ন রেলওয়ের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ছিলেন। ফলত পিতার কর্মস্থানকে ঘিরে শিক্ষা জীবন শুরু হয় । সর্বশেষ এলএলএম ডিগ্রি লাভ করেন । তার ৫ বোনও এম.এ । ২ জন। সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ ছিলেন এর মধ্যে একজন পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করন । তার পিতার মামা চট্টগ্রাম জেলার প্রথম ২জন ডিসটিংশন (মুসলিম) গ্ৰেজুয়েটদের মধ্যে একজন । তার পিতাও ১৯৩৪ সালে ম্যাট্রিক, ১৯৩৬ সালে আইএ পাস করেন। উভয় পরীক্ষায় ১ম বিভাগে উত্তীর্ণ হন। দেশাত্মবোধ ও বিপবী তাড়না হতে মহান যুক্তিযুদ্ধে যোগ দেন। অধিক্ষেত্র ছিল ৩নং সেক্টর। যুদ্ধশেষে ১৯৭৩ সনে অল্প সময়ের ব্যবধানে ৩টি প্রথম শ্রেণির সরকারি চাকরি পান । ৮ ডিসেম্বর ১৯৭৩ ডি.এস.পি পদে যোগ দেন । কর্মজীবনে দীর্ঘ প্ৰায় ৪ বছর গোপালগঞ্জের শেষ মহকুমা পুলিশ অফিসার ছিলেন। চাকরিকালে তিনি ৭টি জেলায় পুলিশ সুপার। (রেলওয়ে চট্টগ্রামসহ) ঢাকা মহানগর পুলিশের ২বার উপ-পুলিশ কমিশনার, পুলিশ হেডকোয়াটার্স-এ এআইজি এবং এপি ব্যাটালিয়নে ২ বার অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৯-২০০০ সালে বসনিয়া এবং হার্জেগোভিনায় জাতিসংঘ শান্তিমিশনে বাংলাদেশ পালন করেন । ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০০৩ সালে পদোন্নতি সভার ৩দিন পূর্বে, ৫০ বছর বয়সে, ২৫ বছর চাকরি পূর্তি হওয়ার কারণে প্রথম বিসিএস (মুক্তিযোদ্ধা) ব্যাচের ৬৮ জন কর্মকর্তার সাথে অবৈধ ও এক্তিয়ার বহির্ভূতভাবে চাকরিচুত্যুত হন। লড়াকু ও দুঃসাহসী এই লেখক মামলা করে প্রথম জয়লাভ করেন। চাকরিচুত্যুতদের মধ্যে ২০০৭ সালে পুনঃনিয়োগপ্রাপ্ত হয়ে তখনকার পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের বিরাগভাজন হন। তাদের অসহযোগিতা ও প্রবল প্রতিরোধের মুখেও সরাসরি ডি.আই.জি পদে পদোন্নতি পেয়ে দ্বিতীয় বারের মতো অবসরে যান । পরবর্তীতে আদালতের আদেশের প্রতি সম্মান দেখিয়ে সরকার ২০০৩ সাল হতে ডিআইজি, ২০০৫ হতে অতিরিক্ত আইজি এবং ২০০৬ সাল হতে আইজিপি পদে পদোন্নতি দিয়ে অবসর দেন । ইতিপূর্বে ‘একুশের গুলিবর্ষণ, মুক্তিযুদ্ধ এবং বঙ্গবন্ধুর কারিশমা ও কিছু অনালোচিত তথ্য” ও “বঙ্গবন্ধু, জিয়া ও মঞ্জর হত্যাকাণ্ড জতুগৃহ একটিই’ নামক তার দুইটি বই প্রকাশিত হয়েছে। পুলিশের কতকথা নামে একটি বই প্রকাশের প্রস্তুতি পর্বে আছে। সেই বইটিতে পুলিশের মঙ্গলময় দিকের সাথে বাহিনীর ভিতরকার অনাচার, দুনীতি, ভর্তি, প্রশিক্ষণ, বদলি, পদোন্নতি, মিশনে গমন যৌন নির্যাতন ইত্যাদি নিয়ে নিন্ পদের কান্না ও হাহাকারের করুণ বিবরণ পাওয়া যাবে। বাংলা ভাষার অতীত নিয়েও লেখা সম্পন্ন হয়েছে। ব্যক্তিগত জীবনে তার স্ত্রী এক কন্যা এক পুত্ৰ তিন নাতি-নাতনী রয়েছে।

দুর্যোধনটি কে?

দুর্যোধনটি কে?

মেজর জেনারেল মঞ্জুর হত্যাকাণ্ড

by মোঃ নূরুল আনোয়ার

(6)

TK. 300

TK. 255

Save TK. 45 (15%)




icon

Delivery Charge Tk. 50(Online order)

icon

Purchase & Earn

Sponsored Products Related To This Item

Readers also bought

Reviews and Ratings

3.83

6 Ratings and 3 Reviews

Recently Sold Products